২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ রাত ৪:২৬

 ক্ষমা করা মহৎ গুণ | মাওলানা আব্দুল্লাহ

আলোকিত নন্দিরগাঁও- Enlightened Nondirgow
  • আপডেট রবিবার, অক্টোবর ৩, ২০২১,
  • 72 Time View

 ক্ষমা করা মহৎ গুণ | মাওলানা আব্দুল্লাহ

 

কখনও কি কাউকে ক্ষমা করে দিয়েছেন?

তাহলে আসুন, এ সম্পর্কে জেনে নেই কিছু কথা!

 

হযরত মূসা আলাইহিসসালাম আল্লাহ তায়ালার সাথে কথোপকথনের এক পর্যায়ে জিজ্ঞেস করলেন, রাব্বুল আলামিন! আপনার বান্দাদের মধ্যে কে আপনার কাছে বড় সম্মানি?

 

আল্লাহ তায়ালা উত্তরে বললেন, মূসা! ঐ বান্দা, যে প্রতিশোধ নেয়ার ক্ষমতা থাকা সত্বেও মানুষকে ক্ষমা করে দেয়। (বায়হাকি শরীফ)

 

সুতরাং প্রতিনিয়ত যারা আপনার সাথে বেইমানি করেছে, প্রতারণা করেছে, আপনার ব্যাপারে মিথ্যে বলেছে, খারাপ আচরণ করেছে, ক্ষতি করেছে, আপনাকে অযথা কষ্ট দিয়েছে। আপনার প্রতিশোধ নেয়ার ক্ষমতা আছে, তারপর ও ওদেরকে ক্ষমা করে দিন।

 

কারণ, ক্ষমা করা একটি মহৎ গুণ। ক্ষমার দ্বারা মানুষ সম্মানি হয়, ক্ষমার দ্বারা সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হয়, ক্ষমার দ্বারা শত্রু বন্ধুতে পরিণত হয়ে যায়, ক্ষমার দ্বারা বংশের পরিচয় হয়। ক্ষমার দ্বারা আত্মতৃপ্তি লাভ হয়, ক্ষমার দ্বারা আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন করা যায়। ক্ষমাকারীকে আল্লাহ তায়ালা ভালবাসেন, ক্ষমাকারীকে সবাই ভালবাসে।

 

হযরত ঈসা আলাইহিসসালাম বলেন, তুমি যদি মানুষের দোষত্রুটি ক্ষমা করতে না পার, তবে আল্লাহ তায়ালার নিকট ক্ষমা পাওয়ার আশা করবে কোন মুখে?

 

বুঝা গেল, আল্লাহ তায়ালার কাছে ক্ষমা পেতে হলে, মানুষকে ক্ষমা করা শিখতে হয়।

 

তাই আসুন! মানুষকে ক্ষমা করে দেই, আল্লাহ তায়ালার কাছে সম্মানিত হই। সম্মানিত হওয়ার এই পন্থাটি আনলিমিটেড ••••••••••

 

আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সম্মানিত হওয়ার এই সুযোগটি গ্রহণ করার তাওফিক দান করুন।

 

 

 

মাওলানা আব্দুল্লাহ

নন্দিরগাঁও মাঝপাড়া

ইমাম: আসরার বনি সা’দ জামে মসজিদ।

সালতানাত ওমান।

এই লেখাটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ ধরনের আরও লেখা
Developed by PAPRHI
Theme Dwonload From Ashraftech.Com
ThemesBazar-Jowfhowo